পথে পথে মাশরাফির নির্বাচনী সভা, ভক্তদের ভীড়

৬০

নড়াইল-২ আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা নিজ নির্বাচনী এলাকায় নৌকায় ভোট চেয়ে ব্যস্ত দিন পার করেছেন। রবিবার দিনব্যাপী বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন তিনি।

সকালে নড়াইলের কালনা ঘাটে পৌঁছান মাশরাফি। সেখানে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সমাগমে জনসমুদ্র পরিণত হয়। দলীয় নেতাকর্মী আর ভক্তরা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। নৌকার স্লোগানে চারিদিক মুখরিত হয়ে ওঠে।

মাশরাফি বিন মুর্তজা আগমন উপলক্ষে নড়াইল শহর থেকে মধুমতি নদীর কালনা এলাকা পর্যন্ত দীর্ঘ ২০ কিলোমিটার নেতাকর্মীরা আর সাধারণ মানুষ মোড়ে মোড়ে ভীড় করেন।

কালনা ঘাটে পথসভার মধ্য দিয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট চেয়ে প্রচারণা শুরু করেন মাশরাফি। কালনায় পরপর সাতটি পথসভা করেন তিনি।

এরপর লোহাগড়া ব্রীজ মোড়ে কুন্দসী, লক্ষ্মীপাশা চৌরাস্তায়, এড়েন্দা চৌরাস্তায়, চৌগাছা স্ট্যান্ডে, দত্তপাড়ায় বাসস্ট্যান্ডে, নাকশী বাজার বটতলায় পথসভা করেন। সন্ধ্যার পর নড়াইল চৌরাস্তা হয়ে পুরাতন বাসটার্মিনালে গিয়ে বঙ্গবন্ধু মঞ্চে গিয়ে দিনের শেষ নির্বাচনী পথসভা করেন।

তার এসব নির্বাচনী কার্যক্রমে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস বোস, সাধারণ সম্পাদক নিজামউদ্দিন খান নিলু, সাংগাঠনিক সম্পাদক ও নড়াইল পৌরসভার মেয়র জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক গাউসুল আজম, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি তরিকুল ইসলাম উজ্জ্বল, সাধারণ সম্পাদক এসএম পলাশ, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নিলয় রায় বাধন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নড়াইলের এই আসনটি নড়াইল পৌরসভা ও ৮টি ইউনিয়ন এবং লোহাগড়া পৌরসভা ও লোহাগড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। লোহাগড়া উপজেলার ভোটার সংখ্য ১ লাখ ৭৯ হাজার ৩৪৭ জন, নড়াইল সদর উপজেলার ভোটার সংখ্য ১ লাখ ৩৮ হাজার ৪৩৫ জন।

জেলা নির্বাচন অফিসের অফিস সহকারি নওশের আলী জানান, এই আসনে বর্তমানে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ১৭ হাজার ৭৮২জন। পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৫৭ হাজার ১০৫ জন এবং মহিলা ভোটার রয়েছে ১ লাখ ৬০ হাজার ৬৭৭ জন। পুরুষ ভোটার থেকে নারী ভোটার রয়েছে ৩ হাজার ৫৭২ জন বেশি।

এই আসনে ১৯৭৩, ৯১, ৯৬, ২০০৮ এবং ২০১৪ সালের সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক জয়লাভ করে। তবে ২০১৪ সালে আলীগের নৌকা নিয়ে জয়লাভ করে বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পার্টির নড়াইল জেলা শাখার সভাপতি বর্তমান সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান। আসনটিতে ১৯৮৬ ও ১৯৮৮ সালে জাতীয় পার্টি এবং ১৯৭৯ এবং ২০০১ উপ-নির্বাচনে বিএনপি জয়লাভ করে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ফেইসবুক