ভারতের সাহায্যে ঢাকায় ফিল্ম সিটি

ভারতের সাহায্যে ঢাকায় ফিল্ম সিটি

পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

2020-01-14

সিএএ-বিতর্কের জেরে বাংলাদেশের তিনজন মন্ত্রী পরপর ভারত সফর বাতিল করেছিলেন৷ তারপর মঙ্গলবার আবার ভারত ও বাংলাদেশের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক হলো৷ 

ভারতের সাহায্যে গড়ে উঠবে ঢাকার ফিল্ম সিটি৷ ভারতে একাধিক ফিল্ম সিটি থাকলেও বাংলাদেশে এই প্রথম ফিল্ম সিটি হবে৷ ভারত ও বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রীদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে৷ 

ভারতের তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরের সঙ্গে মঙ্গলবার আলোচনায় বসেছিলেন বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ৷ সেই আলোচনায় বেশ কয়েকটি বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে৷  তার মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হল, ঢাকায় ফিল্ম সিটি তৈরিতে ভারতের সাহায্যের বিষয়টি৷

বৈঠকের পর হাসান বলেন, আমরা ভারতের কাছে ফিল্ম সিটি তৈরির জন্য সাহায্য চেয়েছিলাম৷ কারণ, ভারতের এ ব্যাপারে বিপুল অভিজ্ঞতা আছে৷ ভারতই এখন বিশ্বের সব চেয়ে বড় সিনেমা প্রস্তুতকারক দেশ৷ সে জন্যই তাঁদের কাছ থেকে সাহায্য চেয়েছি৷'
আর প্রকাশ জাভড়েকর জানিয়েছেন, 'ফিল্ম সিটি করা নিয়ে কথা হয়েছে৷ দু'দেশের মধ্যে চলচ্চিত্রের ও সরকারি টিভির অনুষ্ঠান আদানপ্রদান নিয়ে কথা হয়েছে৷  আমরা বাংলাদেশে ফিল্ম সিটি করার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছি৷'

সূত্র জানিয়েছে, ফিল্ম সিটি নিয়ে আলোচনার জন্য ভারত অবিলম্বে বাংলাদেশকে একটা প্রতিনিধদল পাঠাতে বলেছে৷ তারা এসে মুম্বাই ও হায়দরাবাদে ফিল্ম সিটি দেখবে৷ তারপর কী ধরনের সাহায্য চাই, কোন ধরনের প্রযুক্তি তারা আশা করছে, সে বিষয়ে জানাবে৷ ভারত সে ভাবে বাংলাদেশকে সাহায্য করবে৷

বাংলাদেশের তথ্যমন্তী বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর শতবর্যে তাঁর ওপর সিনেমা নিয়ে সমঝেোতা চুক্তি হয়েছে৷ প্রকাশ জানিয়েছেন, শ্যাম বেনেগাল সিনেমাটি তৈরি করবেন এবং সঠিক সময়ে তা তৈরি হয়ে যাবে৷ বঙ্গবন্ধু শতবর্ষ উদযাপন উৎসবের মধ্যে সিনেমাটি মুক্তি পাবে৷

সিএএ-বিতর্ক সামনে আসার পর বাংলাদেশের তিনজন মন্ত্রীর সফর বাতিল হয়েছে৷ তারপর হাছান মাহমুদের ভারত সফর হল, মন্ত্রী পর্যায়ের আলোচনা হল৷ তাই এই সফরের গুরুত্ব আলাদা৷ 

প্রবীণ সাংবাদিক সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায় ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, বাংলাদেশ আনুষ্ঠানিকভাবে কখনোই বলেনি যে, এনআরসি ও সিএএ-র জেরে সফর বাতিল হয়েছে৷ কিন্তু সফর বাতিলের আসল কারণ এটাই৷ এনআরসি ও সিএএ নিয়ে বাংলাদেশের ক্ষোভ ও আশঙ্কা আছে৷ সেই পরিপ্রেক্ষিতে আলোচনা যে আবার শুরু হল, সেটা নিঃসন্দেহে সুখের ও স্বস্তির বিষয়৷

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রীর ওএসডি সত্যনারায়ণন ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, বাংলাদেশ হল ভারতের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ প্রতিবেশী৷ এ দিনের আলোচনা ও সিদ্ধান্ত দু দেশের সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করবে৷

আগে বাংলাদেশের বিদেশ প্রতিমন্ত্রী রাইসিনা ডায়লগে থাকতে পারবেন না বলে জানিয়েছিলেন৷ বিদেশ মন্ত্রণালয়  এখন হাছান মাহমুদকে সেখানে থাকার অনুরোধ করেছে৷ তিনি সম্ভবত বুধবার সেখানে থাকবেনও৷ সব মিলিয়ে বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রীর ভারত সফর বাড়তি গুরুত্ব পেয়ে যাচ্ছে৷-ডয়চে ভেলে
 


পূর্বপশ্চিমবিডি/ওআর

পূর্বপশ্চিম পড়তে ক্লিক করুন https://ppbd.news

© PURBOPOSHCIMBD

window.dataLayer = window.dataLayer || [];
function gtag(){dataLayer.push(arguments);}
gtag(‘js’, new Date());

gtag(‘config’, ‘UA-91641026-1′);

_atrk_opts = { atrk_acct:’2k5Ft1DTcA20Ug’, domain:’ppbd.news’,dynamic: true};
(function() { var as = document.createElement(‘script’); as.type = ‘text/javascript’; as.async = true; as.src = ‘https://certify-js.alexametrics.com/atrk.js’; var s = document.getElementsByTagName(‘script’)[0];s.parentNode.insertBefore(as, s); })();

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ফেইসবুক