সন্তানের সঙ্গে পিরিয়ড নিয়ে কথা বলার সঠিক সময় কখন ?

নিউজ দেশবাংলা ডেস্ক:: অনেক অভিভাবকই সন্তানের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলতে দ্বিধাবোধ করেন। আবার কথা বলার জড়তা না থাকলেও, ঠিক কখন কোন ব্যাপারে সন্তানকে জানানো দরকার তা অনেকেই বুঝে উঠতে পারেন না। এমনই একটি ব্যাপার হলো পিরিয়ড। তাই পিরিয়ড নিয়ে কথা বলার সঠিক সময়টি জানতে হবে।

সাধারণত একটি মেয়ের ৮ থেকে ১২ বছরের মধ্যে পিরিয়ড শুরু হতে পারে। আপনার মেয়ে যদি এই বয়সী হয় তাহলে এটি তার সঙ্গে পিরিয়ড নিয়ে কথা বলার সবচেয়ে আদর্শ সময়। আর আপনার ছেলে কিশোর বয়সে পদার্পন করলে তার সঙ্গেও কথা বলতে পারেন। তবে কথা বলার পূর্বে লক্ষ্য রাখবেন আপনার সন্তান ম্যাচিউরড হয়েছে কিনা কিংবা এই ব্যাপারগুলো বোঝার বা মেনে নেয়ার জন্য প্রস্তুত কিনা।

যেভাবে বুঝাবেন

আপনার সন্তানের সঙ্গে পিরিয়ড নিয়ে কথা বলার সময় মূল কাহিনী সহজ ভাষায় বুঝিয়ে বলুন এবং কোনো ধরনের ভুল ধারণা দেয়া যাবেনা। আপনার মেয়েকে বুঝিয়ে বলতে পারেন যখন তার পিরিয়ড বা ঋতুস্রাব হবে তখন সে যেন লজ্জা কিংবা ভয় না পায় বরং এটি একটি স্বাভাবিক ও আনন্দের বিষয়। আবার ছেলে সন্তানকে বুঝিয়ে বলুন কোনো মেয়ের পিরিয়ড হলে তাকে উদ্ভট প্রশ্ন করে বিব্রতকর অবস্থায় যেন না ফেলে। এটি খুব স্বাভাবিক একটি বিষয়।

নিজেকে প্রস্তুত করুন

আপনার সন্তানের সকল ধরনের প্রশ্নের উত্তর দেয়ার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে নিন। এমন পরিস্থিতিতে অনেক ধরনের প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে আপনাকে। সব ধরনের প্রশ্নের সঠিক এবং সুষ্ঠু উত্তর দেয়ার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে তুলুন। এক্ষেত্রে আপনি সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্য নিতে পারেন। আজকাল ইউটিউবে সন্তানের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলার জন্য অনেক ধরনের ভিডিও আছে। এছাড়াও বই পড়ে কিংবা স্কুলের টিচার বা অন্য কারো সাথে কথা বলে আপনি নিজেকে প্রস্তুত করে নিতে পারেন।

সঠিক তথ্য দান

আপনার সন্তানের সঙ্গে পিরিয়ড নিয়ে কথা বলার সময় অবশ্যই তাকে সঠিক তথ্য দিবেন। কত বয়স থেকে কত বয়স পর্যন্ত পিরিয়ডের স্থায়িত্বকাল একটি মেয়ের জন্য এর প্রয়োজনীয়তা সাবধানতা ইত্যাদি সবধরনের সঠিক তথ্য দিতে হবে।

পিরিয়ড একটি স্বাভাবিক ও প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া এতে লজ্জা পাওয়ার কিছুই নেই। তাছাড়া এতে গোপনীয়তারও কিছু নেই। তাই লজ্জা বা অস্বস্থি ভুলে আপনার সন্তানের সঙ্গে পিরিয়ড বা ঋতুস্রাব নিয়ে খোলামেলা কথা বলুন।

 

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ফেইসবুক